Home / প্রচ্ছদ / আমি গর্বিত আমি রিক্সা ওয়ালার সন্তান

আমি গর্বিত আমি রিক্সা ওয়ালার সন্তান

সি আই মামুন:  প্রবল ইচ্ছা আর চেষ্টা থাকলে যে, মানুষের কাছে অসম্ভব বলে কিছু নেই তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ১৫ নং বড় হযরতপুর ইউনিয়নের সেরু ডাঙ্গা গ্রামের মোঃ জামিউল ইসলাম জুয়েল। হতদরিদ্র ঘরে জন্মগ্রহন করেও জামিউল ইসলাম জুয়েল তাক লাগিয়ে দিয়েছে নিন্ম মাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে জি.পি এ ৫ পেয়ে।
বাবা রিক্সা চালিয়ে ছেলের পড়াশোনার খরচ চালিয়েছেন। তিলে তিলে গড়ে তোলা স্বপ্ন পূরন করেছেন জামিউল। এবার স্বপ্ন জয়ের পালা। বি সি এস ক্যাডার হয়ে রিক্সাচালক বাবার মুখে হাসি ফুটানোর ইচ্ছা তার।
জামিউলের বাড়ি রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার ১৫ নং বড় হযরত ইউনিয়নের সেরু ডাঙ্গা গ্রামের কৃতি সন্তান। বাবা মো: তছলিম উদ্দিন রিক্সাচালক। দিনশেষে যা রোজগার তা দিয়েই চলে সংসার আর ৩ মেয়ে ২ ছেলের পড়াশোনার খরচ। জামিউলের মা জুলেখা বেগম গৃহিণী। জামিউল তার মা-বাবার ৫ সন্তানের মধ্যে সবার ছোট। পুলিশ লাইন্স স্কুল ও কলেজ রংপুর কলেজ থেকে এইচ এস সি পরিক্ষায় অংশ গ্রহণ করে দিনাজপুর বোর্ডের সেরা ১১ জনের মধ্যে অন্যতম একজন মেধাবী ছাত্র।
জামিউল আরিপপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৫ম শ্রেণী ৫২২ নম্বর পেয়ে মিঠাপুকুর উপজেলায় ২য় স্থান পেয়েছিল। ৬ষ্ট শ্রেণীতে সেরুডাঙ্গা এবং ৭ম থেকে ১০ শ্রেণী পর্যন্ত মিঠাপুকুর মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় জে এস সি ও এস এস সি পরিক্ষায় জি পি এ ৫ অর্জন করে।
জামিউলের ছোট থেকেই পড়ালেখার প্রতি প্রচন্ড আগ্রহ ছিল। পারিবারিক অভাব অনটনে কোনো অবস্থাতেই সে স্কুল ক্লাস ফাঁকি দেয়নি। কারণ লেখাপড়া করে সচিব হয়ে দেশ সেবায় আত্মনিয়জিত হতে চায়। সচিব হওয়ার স্বপ্নে দেখতে প্রথমে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায় ক্রমে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল সচিব হয়ে দেশ সেবায় আত্মনিয়োগ করে দরিদ্র পিতার স্বপ্ন পূরণ করবেন। এবং দেশের কল্যাণের নিজের মেধাকে কাজে লাগাবেন।


খেয়ে না খেয়ে পড়াশোনা করে আজকে আমার এই পর্যন্ত আসা। বাবা রিক্সা চালান। পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী বাবার পক্ষে সংসার ও আমার পড়ালেখার খরচ চালিয়ে যাওয়া সম্ভব ছিলনা। আর আমি ছিলাম পরিবারের ছোট সন্তান।
জামিউল ইসলাম জুয়েল জানায়, তার পড়া শুনা চলাকালীন বিভিন্ন প্রতিকুলতার মধ্যেও ডাচ বাংলা ব্যাংক বৃত্তি সহায়তা সহ তার মাথার উপরে ছায়ার মতো থেকেছেন তার এলাকার গ্রাম সম্পর্কের বড় আব্বু সেকেন্দার আলী, রামরায়ে পারা দাখিল মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক (অবশর প্রাপ্ত), লায়ন্স ক্লাব অব ঢাকা, ধানমন্ডি ৩১৫অ১ থেকে নুরুল হুদা ও হিরোক বিশ্বাস বিভিন্ন সময়ে জামিউলের পাশে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেয়।

About rangpur24news

Check Also

রংপুরে সিরোটসি ট্রাস্টের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মানববন্ধন

রংপুর অফিস: আসন্ন ঈদুল আযহার আগে বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবীতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতায় পরিচালিত সিরোটসি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *